ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
রামকান্তুপুর ইউয়িনের মোহনশাহ’র বটতলার গোল চত্বর এর উদ্বোধন রাজবাড়ীতে মাদকদ্রব্যর অপব্যবহার ও পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস ও আলোচনা সভা রাজবাড়ীতে ডিবি পুলিশের অভিযানে মাদক ব্যবসায়ী মোজাম্মেল আটক রাজবাড়ী শহর রক্ষা প্রকল্প (ফেইজ-২) বাস্তবায়ন বিষয়ক সাধারণ সমন্বয় সভা সন্ধ্যার মধ্যে বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান করতে হবে-প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী রামকান্তপুর ইউনিয়ন ও পৌর নবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সোহেল রানা। ঈদুল ফিতর’ উপলক্ষে চন্দনী ইউনিয়বাসীর সুস্বাস্থ্য, সুখ-সমৃদ্ধি ও অনাবিল আনন্দ কামনা করে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন-শাহিনুর পৌরবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা মীর সজল জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল সম্প্রদায়ের মানুষকেঈদের শুভেচ্ছা কাজী ইরাদত আলীর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে ছিন্নমূল মানুষের মাঝে ইফতার বিতরণ

বালিয়াকান্দির দু’গ্রুপের সেই সংঘর্ষের দেড় মাস পর আহত ব্যাক্তির মৃত্যু

খন্দকার রবিউল ইসলাম, রাজবাড়ী টুডে: রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের গাংচর পদমদী গ্রামে গাছের পাতা ঝাড় দেওয়া–কে কেন্দ্র করে গত ২৩ নভেম্বর দু,গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

ঘটনার ৪৫দিন পর ৭ জানুয়ারী শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে আব্দুল গফুর মোল্লার মৃত্যু হয়।
নিহত আব্দুল গফুর মোল্যা (৬০) নবাবপুর ইউনিয়নের গাংচর পদমদী গ্রামের মৃত আব্দুল কাদের মোল্যার ছেলে।
নিহত গফুর মোল্যার স্ত্রীর বড় ভাই মোঃ নাজির হোসেন জানান ২০১৬ সালের ২৩ নভেম্বর সকাল ৭টার দিকে গাংচর পদমদী গ্রামের নাজির হোসেন ও আব্দুল কুদ্দুসের মেহগনি বাগানে গাছের পাতা ঝাড়–দিতে যায় গফুর মোল্যার স্ত্রী রাশিদা বেগম ও পুত্রবধু শিল্পী বেগম এসময় ঝরি বেগম ও আমেনা বেগম ও ওই বাগানে পাতা ঝাড়– দিতে গেলে তাদের সাথে কথা কাটা কাটি হয়।
পরে নাজির হোসেন ৪জনকেই পাতা ঝাড়– দিতে নিষেধ করে। এনিয়ে দু,গ্রুপের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আঃ গফুর মোল্যা নাজির হোসেনের বাড়ী থেকে নিজবাড়ী ফেরার পথে জনৈক সিরাজের বাড়ীর সামনে ইটের রাস্তায় পৌছালে সিরাজুল ইসলাম, গুচ্ছগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আঃ ছত্তার মোল্যার নেতৃত্বে ফকের মন্ডল মসজিদের মাইকে সংঘর্ষের ঘোষনা দেয়।
এসময় মনিরুল ইসলাম, রফিক মন্ডল, আশরাফুল ইসলাম, শাহিন মন্ডল, নজরুল ইসলাম, জিয়া মন্ডল, রুহুল মন্ডল, ফরহাদ মন্ডল, ফারুক মন্ডল, কহিরুল শেখ, জহিরুল শেখ, ইদ্রিস মন্ডল, জাফর, তাছের মন্ডল, আমেনা বেগম, হাসিনা বেগম, মামুন মন্ডল, আমের আলী মন্ডলসহ ৪-৫জন দৈশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।
এ হামলায় আহত হন, আব্দুল গফুর মোল্যা, ছেলে রইচ মোল্যা (৩২), আব্দুর রব মোল্যা (২৮), নাজির হোসেনের ছেলে নাজমুল (৩০), আমীর আলী মন্ডলের ছেলে মোঃ আনিস মন্ডল (৩৫), তোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে তুহিন (২৮), হোসেন আলী মন্ডলের ছেলে মনিরুল মন্ডল (২৬)।
আহতদের মধ্যে নাজমুল, গফুর মোল্যা, আনিস মন্ডল, মনিরুল মন্ডল ও রইচ মোল্যাকে বালিয়াকান্দি হাসপাতালে ও আঃ রব মোল্যা , তুহিনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এরমধ্যে নিহত গফুর মোল্যাকে গত ২৩ নভেম্বর ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। সেখান থেকে ৪ ডিসেম্বর ছাড়পত্র প্রদান করলে বাড়ী এসে অসুস্থ হয়ে পড়লে ১৩ ডিসেম্বর রাজবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
পরে ১৪ ডিসেম্বর তাকে রাজবাড়ী হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।
২১ ডিসেম্বর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে এর আরকোন চিকিৎসা নেই বলে ছারপত্র প্রদান করে। বাড়ী ফেরার পথে অসুস্থ হয়ে গেলে বাড়িতে না নিয়ে সাথে সাথে রাজবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
পরে ২৬ ডিসেম্বর রাজবাড়ী হাসপাতাল থেকেও তাকে ফেরত দেওয়া হয়।পরে ২৭ ডিসেম্বর পুনরায় অসুস্থ হয়ে পড়লে বালিয়াকান্দি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
২ জানুয়ারী বালিয়াকান্দি হাসপাতাল থেকে আবার ফেরত দিলে বাড়ীতেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে নিজবাড়ীতেই তার মৃত হয়।
এ ঘটনায় গত ২৩ নভেম্বর রইজ মোল্যা বাদী হয়ে বালিয়াকান্দি থানায় ১৯জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। মামলার সব আসামীই বর্তমানে জামিনে রয়েছে। প্রতিপক্ষও একটি মামলা দায়ের করে। জামিনে এসে গত ২৯ ডিসেম্বর রাতে রইজ মোল্যার রান্না ঘরে কেরসিন তেল ঢেলে আগুন দিয়ে দিলে তার রান্না ঘর ও বসঘরটি পুড়ে যায়।
এ মামলায় ইতিমধ্যেই আদালতে চার্জশীট দাখিল করেছে পুলিশ।
বালিয়াকান্দি থানার ওসি মোঃ জাহিদুল ইসলাম জানান, আব্দুল গফুর মোল্যার মৃত্যুর খবর পাওয়ার সাথে সাথে লাশ উদ্ধার করে রবিবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে হয়েছে।তিনি আরো জানান এঘটনায় একটি জিডি হয়েছে ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসলে।
পরে নিহতের পরিবারের লোকজন ০৮ জানুয়ারী ময়না তদন্ত শেষে সন্ধ্যায় লাশ বাড়িতে এন এশার নামাজের পরে নামাজে জানাযা শেষে বাড়ির পাসের একটি কবরস্থানে দাফন করেন।

Tag :

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

লেখক তথ্য সম্পর্কে

Meraj Gazi

জনপ্রিয় পোস্ট

রামকান্তুপুর ইউয়িনের মোহনশাহ’র বটতলার গোল চত্বর এর উদ্বোধন

বালিয়াকান্দির দু’গ্রুপের সেই সংঘর্ষের দেড় মাস পর আহত ব্যাক্তির মৃত্যু

আপডেটের সময় : ১১:২৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ৮ জানুয়ারী ২০১৭

খন্দকার রবিউল ইসলাম, রাজবাড়ী টুডে: রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের গাংচর পদমদী গ্রামে গাছের পাতা ঝাড় দেওয়া–কে কেন্দ্র করে গত ২৩ নভেম্বর দু,গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

ঘটনার ৪৫দিন পর ৭ জানুয়ারী শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে আব্দুল গফুর মোল্লার মৃত্যু হয়।
নিহত আব্দুল গফুর মোল্যা (৬০) নবাবপুর ইউনিয়নের গাংচর পদমদী গ্রামের মৃত আব্দুল কাদের মোল্যার ছেলে।
নিহত গফুর মোল্যার স্ত্রীর বড় ভাই মোঃ নাজির হোসেন জানান ২০১৬ সালের ২৩ নভেম্বর সকাল ৭টার দিকে গাংচর পদমদী গ্রামের নাজির হোসেন ও আব্দুল কুদ্দুসের মেহগনি বাগানে গাছের পাতা ঝাড়–দিতে যায় গফুর মোল্যার স্ত্রী রাশিদা বেগম ও পুত্রবধু শিল্পী বেগম এসময় ঝরি বেগম ও আমেনা বেগম ও ওই বাগানে পাতা ঝাড়– দিতে গেলে তাদের সাথে কথা কাটা কাটি হয়।
পরে নাজির হোসেন ৪জনকেই পাতা ঝাড়– দিতে নিষেধ করে। এনিয়ে দু,গ্রুপের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আঃ গফুর মোল্যা নাজির হোসেনের বাড়ী থেকে নিজবাড়ী ফেরার পথে জনৈক সিরাজের বাড়ীর সামনে ইটের রাস্তায় পৌছালে সিরাজুল ইসলাম, গুচ্ছগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আঃ ছত্তার মোল্যার নেতৃত্বে ফকের মন্ডল মসজিদের মাইকে সংঘর্ষের ঘোষনা দেয়।
এসময় মনিরুল ইসলাম, রফিক মন্ডল, আশরাফুল ইসলাম, শাহিন মন্ডল, নজরুল ইসলাম, জিয়া মন্ডল, রুহুল মন্ডল, ফরহাদ মন্ডল, ফারুক মন্ডল, কহিরুল শেখ, জহিরুল শেখ, ইদ্রিস মন্ডল, জাফর, তাছের মন্ডল, আমেনা বেগম, হাসিনা বেগম, মামুন মন্ডল, আমের আলী মন্ডলসহ ৪-৫জন দৈশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।
এ হামলায় আহত হন, আব্দুল গফুর মোল্যা, ছেলে রইচ মোল্যা (৩২), আব্দুর রব মোল্যা (২৮), নাজির হোসেনের ছেলে নাজমুল (৩০), আমীর আলী মন্ডলের ছেলে মোঃ আনিস মন্ডল (৩৫), তোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে তুহিন (২৮), হোসেন আলী মন্ডলের ছেলে মনিরুল মন্ডল (২৬)।
আহতদের মধ্যে নাজমুল, গফুর মোল্যা, আনিস মন্ডল, মনিরুল মন্ডল ও রইচ মোল্যাকে বালিয়াকান্দি হাসপাতালে ও আঃ রব মোল্যা , তুহিনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এরমধ্যে নিহত গফুর মোল্যাকে গত ২৩ নভেম্বর ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। সেখান থেকে ৪ ডিসেম্বর ছাড়পত্র প্রদান করলে বাড়ী এসে অসুস্থ হয়ে পড়লে ১৩ ডিসেম্বর রাজবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
পরে ১৪ ডিসেম্বর তাকে রাজবাড়ী হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।
২১ ডিসেম্বর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে এর আরকোন চিকিৎসা নেই বলে ছারপত্র প্রদান করে। বাড়ী ফেরার পথে অসুস্থ হয়ে গেলে বাড়িতে না নিয়ে সাথে সাথে রাজবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
পরে ২৬ ডিসেম্বর রাজবাড়ী হাসপাতাল থেকেও তাকে ফেরত দেওয়া হয়।পরে ২৭ ডিসেম্বর পুনরায় অসুস্থ হয়ে পড়লে বালিয়াকান্দি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
২ জানুয়ারী বালিয়াকান্দি হাসপাতাল থেকে আবার ফেরত দিলে বাড়ীতেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে নিজবাড়ীতেই তার মৃত হয়।
এ ঘটনায় গত ২৩ নভেম্বর রইজ মোল্যা বাদী হয়ে বালিয়াকান্দি থানায় ১৯জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। মামলার সব আসামীই বর্তমানে জামিনে রয়েছে। প্রতিপক্ষও একটি মামলা দায়ের করে। জামিনে এসে গত ২৯ ডিসেম্বর রাতে রইজ মোল্যার রান্না ঘরে কেরসিন তেল ঢেলে আগুন দিয়ে দিলে তার রান্না ঘর ও বসঘরটি পুড়ে যায়।
এ মামলায় ইতিমধ্যেই আদালতে চার্জশীট দাখিল করেছে পুলিশ।
বালিয়াকান্দি থানার ওসি মোঃ জাহিদুল ইসলাম জানান, আব্দুল গফুর মোল্যার মৃত্যুর খবর পাওয়ার সাথে সাথে লাশ উদ্ধার করে রবিবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে হয়েছে।তিনি আরো জানান এঘটনায় একটি জিডি হয়েছে ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসলে।
পরে নিহতের পরিবারের লোকজন ০৮ জানুয়ারী ময়না তদন্ত শেষে সন্ধ্যায় লাশ বাড়িতে এন এশার নামাজের পরে নামাজে জানাযা শেষে বাড়ির পাসের একটি কবরস্থানে দাফন করেন।