ঢাকা , বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
রামকান্তুপুর ইউয়িনের মোহনশাহ’র বটতলার গোল চত্বর এর উদ্বোধন রাজবাড়ীতে মাদকদ্রব্যর অপব্যবহার ও পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস ও আলোচনা সভা রাজবাড়ীতে ডিবি পুলিশের অভিযানে মাদক ব্যবসায়ী মোজাম্মেল আটক রাজবাড়ী শহর রক্ষা প্রকল্প (ফেইজ-২) বাস্তবায়ন বিষয়ক সাধারণ সমন্বয় সভা সন্ধ্যার মধ্যে বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান করতে হবে-প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী রামকান্তপুর ইউনিয়ন ও পৌর নবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সোহেল রানা। ঈদুল ফিতর’ উপলক্ষে চন্দনী ইউনিয়বাসীর সুস্বাস্থ্য, সুখ-সমৃদ্ধি ও অনাবিল আনন্দ কামনা করে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন-শাহিনুর পৌরবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা মীর সজল জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল সম্প্রদায়ের মানুষকেঈদের শুভেচ্ছা কাজী ইরাদত আলীর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে ছিন্নমূল মানুষের মাঝে ইফতার বিতরণ

আজ আওয়ামী লীগ’র কাউন্সিল, নজিরবিহীন নিরাপত্তা

এস এম ফয়েজ, বিশেষ প্রতিনিধি: আজ শনিবার শুরু হচ্ছে আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় কাউন্সিল। এ উপলক্ষে সাজ সাজ রবের মাঝে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হচ্ছে রাজধানীর দক্ষিণাঞ্চলকে।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টায় সম্মেলন স্থলের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ করেছেন পুলিশের মহা-পরিদর্শক এ কে এম শহীদুল হক। এসময় তিনি বলেন, সম্মেলন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সম্মেলনস্থল ও চারপাশে ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরার মাধ্যমে নজরদারি করা হবে। বলেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ১০ হাজার সদস্য নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবে।
মহানগর পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ২২ ও ২৩ অক্টোবর আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিল উপলক্ষে গোটা রাজধানীতে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সম্মেলন স্থল ও আশপাশে এলাকায় নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হয়েছে।
ডিএমপি কমিশনার বলেন, কাউন্সিলকে নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন করতে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। শাহবাগ, মৎস্য ভবন, দোয়েলচত্বর হয়ে নীলক্ষেত পর্যন্ত সম্মেলনের চারপাশে ক্লোজড সার্কিট টিভি (সিসিটিভি) ক্যামেরার আওতায় থাকবে। তিনি জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ ভিভিআইপিদের মূল প্যান্ডেল এবং মঞ্চের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে এসএসএফ। তারা মাঠে অবস্থান নিয়েছেন।
কাউন্সিলের নিরাপত্তা নির্বিঘ্ন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে আওয়ামী লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরাও নিরাপত্তায় কাজ করছে। বলেন, কারো গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এবারের কাউন্সিলে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে তিনটি কন্ট্রোল রুম থেকে ওয়াচ করার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এছাড়া ৭টি গেটে আর্চওয়ে, মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে সার্চ করার পর প্রবেশ করতে দেওয়া হবে। গাড়ি প্রবেশের ক্ষেত্রেও ভেহিকেল মিরর সার্চ করা হবে।
তিনি জানিয়েছেন, কাউন্সিলে নির্দিষ্ট কোনো নিরাপত্তা হুমকি নেই। এদিকে, rab এর পক্ষ থেকেও নেওয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সম্মেলন মাঠ ও মাঠের বাইরে পুলিশের পাশাপাশি বিভিন্ন সংস্থার সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন নিরাপত্তার।
র্যাবের গোয়েন্দা টিমও কাজ করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের সকল সদস্যকে চেনা যাবে না। পোশাকি সদস্যদের বাইরেও অনেকে সিভিল পোশাকে দায়িত্ব পালন করছে।
আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং স্বেচ্ছাসেবক ও শৃংখলা উপ-কমিটির সদস্য সচিব আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিচ্ছে, সে কারণে তাদের ধন্যবাদ। আর আমাদের নিজস্ব সেচ্ছাসেবক বাহিনীও থাকবে সামগ্রিক শৃঙ্খলা রক্ষায়। আশা করি কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা হবে না। শতভাগ শৃঙ্খলার মধ্য দিয়েই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

Tag :

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

লেখক তথ্য সম্পর্কে

Meraj Gazi

জনপ্রিয় পোস্ট

রামকান্তুপুর ইউয়িনের মোহনশাহ’র বটতলার গোল চত্বর এর উদ্বোধন

আজ আওয়ামী লীগ’র কাউন্সিল, নজিরবিহীন নিরাপত্তা

আপডেটের সময় : ০২:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ অক্টোবর ২০১৬

এস এম ফয়েজ, বিশেষ প্রতিনিধি: আজ শনিবার শুরু হচ্ছে আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় কাউন্সিল। এ উপলক্ষে সাজ সাজ রবের মাঝে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হচ্ছে রাজধানীর দক্ষিণাঞ্চলকে।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টায় সম্মেলন স্থলের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ করেছেন পুলিশের মহা-পরিদর্শক এ কে এম শহীদুল হক। এসময় তিনি বলেন, সম্মেলন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সম্মেলনস্থল ও চারপাশে ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরার মাধ্যমে নজরদারি করা হবে। বলেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ১০ হাজার সদস্য নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবে।
মহানগর পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ২২ ও ২৩ অক্টোবর আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিল উপলক্ষে গোটা রাজধানীতে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সম্মেলন স্থল ও আশপাশে এলাকায় নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হয়েছে।
ডিএমপি কমিশনার বলেন, কাউন্সিলকে নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন করতে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। শাহবাগ, মৎস্য ভবন, দোয়েলচত্বর হয়ে নীলক্ষেত পর্যন্ত সম্মেলনের চারপাশে ক্লোজড সার্কিট টিভি (সিসিটিভি) ক্যামেরার আওতায় থাকবে। তিনি জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ ভিভিআইপিদের মূল প্যান্ডেল এবং মঞ্চের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে এসএসএফ। তারা মাঠে অবস্থান নিয়েছেন।
কাউন্সিলের নিরাপত্তা নির্বিঘ্ন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে আওয়ামী লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরাও নিরাপত্তায় কাজ করছে। বলেন, কারো গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এবারের কাউন্সিলে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে তিনটি কন্ট্রোল রুম থেকে ওয়াচ করার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এছাড়া ৭টি গেটে আর্চওয়ে, মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে সার্চ করার পর প্রবেশ করতে দেওয়া হবে। গাড়ি প্রবেশের ক্ষেত্রেও ভেহিকেল মিরর সার্চ করা হবে।
তিনি জানিয়েছেন, কাউন্সিলে নির্দিষ্ট কোনো নিরাপত্তা হুমকি নেই। এদিকে, rab এর পক্ষ থেকেও নেওয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সম্মেলন মাঠ ও মাঠের বাইরে পুলিশের পাশাপাশি বিভিন্ন সংস্থার সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন নিরাপত্তার।
র্যাবের গোয়েন্দা টিমও কাজ করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের সকল সদস্যকে চেনা যাবে না। পোশাকি সদস্যদের বাইরেও অনেকে সিভিল পোশাকে দায়িত্ব পালন করছে।
আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং স্বেচ্ছাসেবক ও শৃংখলা উপ-কমিটির সদস্য সচিব আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিচ্ছে, সে কারণে তাদের ধন্যবাদ। আর আমাদের নিজস্ব সেচ্ছাসেবক বাহিনীও থাকবে সামগ্রিক শৃঙ্খলা রক্ষায়। আশা করি কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা হবে না। শতভাগ শৃঙ্খলার মধ্য দিয়েই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।