ঢাকা , শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
রামকান্তুপুর ইউয়িনের মোহনশাহ’র বটতলার গোল চত্বর এর উদ্বোধন রাজবাড়ীতে মাদকদ্রব্যর অপব্যবহার ও পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস ও আলোচনা সভা রাজবাড়ীতে ডিবি পুলিশের অভিযানে মাদক ব্যবসায়ী মোজাম্মেল আটক রাজবাড়ী শহর রক্ষা প্রকল্প (ফেইজ-২) বাস্তবায়ন বিষয়ক সাধারণ সমন্বয় সভা সন্ধ্যার মধ্যে বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান করতে হবে-প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী রামকান্তপুর ইউনিয়ন ও পৌর নবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সোহেল রানা। ঈদুল ফিতর’ উপলক্ষে চন্দনী ইউনিয়বাসীর সুস্বাস্থ্য, সুখ-সমৃদ্ধি ও অনাবিল আনন্দ কামনা করে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন-শাহিনুর পৌরবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা মীর সজল জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল সম্প্রদায়ের মানুষকেঈদের শুভেচ্ছা কাজী ইরাদত আলীর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে ছিন্নমূল মানুষের মাঝে ইফতার বিতরণ

রাজবাড়ীর বেজকোলা শিকদার বাড়ীতে শারদীয় দুর্গাপূজার ১০০ বছর

মো: মাহ্ফুজুর রহমান, রাজবাড়ী টুডে ডট কম: :

রাজবাড়ীর সদর উপজেলা বসন্তপুর ইউনিয়নের বেসকোলা শিকদার পাড়ার  দুর্গাপূজা আয়োজন শত বছর পূর্ণ করছে।

১৯১৭ সালে বেসকোলা এলাকায় ‘শিকদার বাড়ী দুর্গা মন্দিরে’ ১ম দর্গাপূজা উদযাপন শুরু হয়। বংশানুক্রমে এই শিকদার বাড়ীতে এছর শারদীয় দুর্গাপূজার আয়োজনের শতবর্ষ।

শিকদার বাড়ী দুর্গাপূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি ও কোলা সদর উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক সুরেশ চন্দ্র শিকদার বলেন, ১৯১৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়ে তৎকালীন সময়ে যগেন্দ্রনাথ শিকদার, দূর্লভ চন্দ্র শিকদার, রাধা চরণ শিকদার, অভয় চরণ শিকদার, যগেন্দ্রনাথ শিকদারের পুত্র শ্রীবাস চন্দ্র শিকদারের আগ্রহে এই দুর্গপূজা শুরু হয়। শত বছর পূর্ণ হওয়ায় এই আয়োজন ইতিহাসে স্থান করে নিয়েছে।

শিকদার বাড়ীর প্রবীণ সদস্য প্রদ্যুৎ শিকদার বলেন, এলাকার কতিপয় ব্যক্তিগণ এড়েন্দা নিবাসী বাবু রবিন্দ্রনাথ পালের নির্মিত প্রতিমা কিনে এখানে পূজা শুরু করেন। ইতিহাসের হাত ধরে এটা একটা মন্দিরই না, এটাকে শিক্ষাঙ্গন বলা যেতে পারে।

শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপন কমিটির ৫ সদস্য বিশিষ্ট উপদেষ্টা মন্ডলীরা হলেন শিকদার বাড়ীর বয়জৈষ্ঠ্য  প্রদ্যুৎ শিকদার, সুশান্ত কুমার শিকদার, তপন শিকদার, নিশিত শিকদার ও সমরেশ শিকদার।

প্রতিবছরের ন্যায় এবারের ১০০ বছর দুর্গাপূজার উদযাপনের ব্যবস্থাপনায় রয়েছেন শিকদার বাড়ীর স্বদেশ, রতন, সুকান্ত, দীপক, নিবাস, অলক, তাপস, কাজল, শিশির, অজয়, শিশির সহ প্রমুখ।

‘শরৎ মেঘে ভাসল ভেলা, কাশ ফুলেতে লাগলো দোলা, ঢাকের উপর পরুক কাঠি, পূজো কাটুক ফাটাফাটি’ এমনই বক্তব্য তুলে ধরেছেন শতবর্ষ দুর্গাপূজা উদযাপনে শিকদার বাড়ী ব্যবস্থাপনা কমিটিবৃন্দ।

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজায় এবছর রাজবাড়ীতে ৩৯৯টি মন্ডপে চলছে জমকালো আয়োজনে। জেলা সদরের ৯৪টি, গোয়ালন্দে ২২টি, কালুখালীতে ৫১টি, পাংশায় ৮৮টি ও বালিয়াকান্দি উপজেলায় ১৪৪টি মন্ডপে আয়োজন করা হয়েছে দুর্গাপূজার।

রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন নির্দেশে পূজা মন্ডপগুলোতে নিরাপত্তায় আনসার, মহিলা আনসার, পুলিশ বাহিনী ও মহিলা পুলিশ সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও রয়েছে র্যাবের টহল ও সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারি।

Tag :

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

লেখক তথ্য সম্পর্কে

Meraj Gazi

জনপ্রিয় পোস্ট

রামকান্তুপুর ইউয়িনের মোহনশাহ’র বটতলার গোল চত্বর এর উদ্বোধন

রাজবাড়ীর বেজকোলা শিকদার বাড়ীতে শারদীয় দুর্গাপূজার ১০০ বছর

আপডেটের সময় : ০৩:৩১ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ অক্টোবর ২০১৬

মো: মাহ্ফুজুর রহমান, রাজবাড়ী টুডে ডট কম: :

রাজবাড়ীর সদর উপজেলা বসন্তপুর ইউনিয়নের বেসকোলা শিকদার পাড়ার  দুর্গাপূজা আয়োজন শত বছর পূর্ণ করছে।

১৯১৭ সালে বেসকোলা এলাকায় ‘শিকদার বাড়ী দুর্গা মন্দিরে’ ১ম দর্গাপূজা উদযাপন শুরু হয়। বংশানুক্রমে এই শিকদার বাড়ীতে এছর শারদীয় দুর্গাপূজার আয়োজনের শতবর্ষ।

শিকদার বাড়ী দুর্গাপূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি ও কোলা সদর উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক সুরেশ চন্দ্র শিকদার বলেন, ১৯১৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়ে তৎকালীন সময়ে যগেন্দ্রনাথ শিকদার, দূর্লভ চন্দ্র শিকদার, রাধা চরণ শিকদার, অভয় চরণ শিকদার, যগেন্দ্রনাথ শিকদারের পুত্র শ্রীবাস চন্দ্র শিকদারের আগ্রহে এই দুর্গপূজা শুরু হয়। শত বছর পূর্ণ হওয়ায় এই আয়োজন ইতিহাসে স্থান করে নিয়েছে।

শিকদার বাড়ীর প্রবীণ সদস্য প্রদ্যুৎ শিকদার বলেন, এলাকার কতিপয় ব্যক্তিগণ এড়েন্দা নিবাসী বাবু রবিন্দ্রনাথ পালের নির্মিত প্রতিমা কিনে এখানে পূজা শুরু করেন। ইতিহাসের হাত ধরে এটা একটা মন্দিরই না, এটাকে শিক্ষাঙ্গন বলা যেতে পারে।

শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপন কমিটির ৫ সদস্য বিশিষ্ট উপদেষ্টা মন্ডলীরা হলেন শিকদার বাড়ীর বয়জৈষ্ঠ্য  প্রদ্যুৎ শিকদার, সুশান্ত কুমার শিকদার, তপন শিকদার, নিশিত শিকদার ও সমরেশ শিকদার।

প্রতিবছরের ন্যায় এবারের ১০০ বছর দুর্গাপূজার উদযাপনের ব্যবস্থাপনায় রয়েছেন শিকদার বাড়ীর স্বদেশ, রতন, সুকান্ত, দীপক, নিবাস, অলক, তাপস, কাজল, শিশির, অজয়, শিশির সহ প্রমুখ।

‘শরৎ মেঘে ভাসল ভেলা, কাশ ফুলেতে লাগলো দোলা, ঢাকের উপর পরুক কাঠি, পূজো কাটুক ফাটাফাটি’ এমনই বক্তব্য তুলে ধরেছেন শতবর্ষ দুর্গাপূজা উদযাপনে শিকদার বাড়ী ব্যবস্থাপনা কমিটিবৃন্দ।

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজায় এবছর রাজবাড়ীতে ৩৯৯টি মন্ডপে চলছে জমকালো আয়োজনে। জেলা সদরের ৯৪টি, গোয়ালন্দে ২২টি, কালুখালীতে ৫১টি, পাংশায় ৮৮টি ও বালিয়াকান্দি উপজেলায় ১৪৪টি মন্ডপে আয়োজন করা হয়েছে দুর্গাপূজার।

রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন নির্দেশে পূজা মন্ডপগুলোতে নিরাপত্তায় আনসার, মহিলা আনসার, পুলিশ বাহিনী ও মহিলা পুলিশ সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও রয়েছে র্যাবের টহল ও সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারি।