ঢাকা , শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
রামকান্তুপুর ইউয়িনের মোহনশাহ’র বটতলার গোল চত্বর এর উদ্বোধন রাজবাড়ীতে মাদকদ্রব্যর অপব্যবহার ও পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস ও আলোচনা সভা রাজবাড়ীতে ডিবি পুলিশের অভিযানে মাদক ব্যবসায়ী মোজাম্মেল আটক রাজবাড়ী শহর রক্ষা প্রকল্প (ফেইজ-২) বাস্তবায়ন বিষয়ক সাধারণ সমন্বয় সভা সন্ধ্যার মধ্যে বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান করতে হবে-প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী রামকান্তপুর ইউনিয়ন ও পৌর নবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সোহেল রানা। ঈদুল ফিতর’ উপলক্ষে চন্দনী ইউনিয়বাসীর সুস্বাস্থ্য, সুখ-সমৃদ্ধি ও অনাবিল আনন্দ কামনা করে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন-শাহিনুর পৌরবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা মীর সজল জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল সম্প্রদায়ের মানুষকেঈদের শুভেচ্ছা কাজী ইরাদত আলীর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে ছিন্নমূল মানুষের মাঝে ইফতার বিতরণ

রাজবাড়ীতে দুর্গাপূজায় প্রস্তুত ৩৯৯টি মন্ডপ, চলছে শেষ মূহুর্তের আয়োজন

  • রিপোর্টারের নাম
  • আপডেটের সময় : ১২:০১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬
  • ১১৭ ভিউয়ের সময়

কাজী তানভীর মাহমুদ,রাজবাড়ী  টুডে ডট কম: হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব  দুর্গাপূজার বাকি আর মাত্র কয়েক দিন। এরইমধ্যে প্রায় প্রস্তুত দেশের সব পূজা মন্ডপ। সারা দেশের মতো রাজবাড়ীতেও ৩৯৯টি মন্ডপে চলছে পূজার শেষ মূহুর্তের আয়োজন।

জেলার ৫টি উপজেলায় প্রত্যেকটি পাড়া মহল্লায় এখন দুর্গাপূজায় সাজ সাজ রব পরেছে। দুর্গা দুর্গতিনাশিনী-দশভূজা দেবী দুর্গা এবার আসছেন ঘটকে আর বিদায় ও নেবেন ঘটকে।মায়ের আগমনে ঘুচে যাবে সকলের দুখ বেদনা এমনটিই কামনা করছেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা।

জেলা সদরের ৯৪টি,গোয়ালন্দে ২২টি,কালুখালীতে ৫১টি,পাংশায় ৮৮টি ও বালিয়াকান্দি উপজেলায় ১৪৪টি মন্ডপে আয়োজন করা হয়েছে দুর্গাপূজার।

received_126160964512465

রাজবাড়ী জেলায় সবচেয়ে বড় ও ব্যতিক্রম পূজার আয়োজন চলছে বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের আলোকদিয়া গ্রামের গোবিন্দ চন্দ্র বিশ্বাসের বাড়িতে।সেখানে পুকুরের উপরে প্রায় ৬০ফিট উচ্চতায় বাঁশ কাঠ দিয়ে ৪তলা বিশিষ্ট মন্ডপ তৈরী করা হয়েছে।সেখানে দেবী দুর্গাসহ হিন্দু ধর্মের বিভিন্ন কাহিনী অবলম্বনে ১৫০টি দেব-দেবীর মূর্তি প্রদর্শিত হবে।এ প্রদর্শন চলবে লক্ষী পূজা পর্যন্ত।

দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে কয়েক লক্ষ মায়ের ভক্ত ও দর্শনার্থী জামালপুরের এ পূজা দেখতে আসবে বলে ধারনা করছে আয়োজক কমিটি।

বালিয়াকান্দির গ্রাম জামালপুর দুর্গাপূজা উদযাপন কমিটির প্রধান আয়োজক গোবিন্দ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, ১৫০দেব-দেবীর ব্যতিক্রম এই পূজা দেখতে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে কয়েক লক্ষ দেবী ভক্ত ও দর্শনার্থীরা উপস্থিত হবেন ব্যাতিক্রম ধর্মী এই পুজায় এমনটি আশা।তবে এবারে দেশের বিভিন্ন স্থানে জঙ্গী হামলার কারনে অনেকটা ভীত হয়ে পরেছেন তারা।কামনা করেছেন পুলিশ প্রশাসনের সহযোগীতা।

তিনি আরও বলেন,এই গ্রাম জামালপুরে ২ যুগ ধরে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ব্যাতিক্রমী ভিন্ন এক আয়োজন করা হয়েছে জামালপুরে। যেখানে প্রদর্শিত হবে হিন্দু ধর্মের বিভিন্ন কাহিনী অবলম্বনে ১৫০ টির বেশী দেব-দেবীর মূর্তি প্রদর্শনী।তাছাড়াও নতুন প্রজন্মের মধ্যে ধর্মের জ্ঞান পরিপূর্ণ করতে তৈরী করা হচ্ছে স্বর্গ ও নরকের কল্পিত রূপ।যাতে করে ন্যায় ও অন্যায়ের ফলাফল মানুষ অনুধাবন করতে পারে।পাপের বোঝা কমাতে পারে।

পূজা উৎযাপনে কালুখালী উপজেলার রতদিয়া ইউনিয়নকে একটি আদর্শ পূজা উৎযাপনের স্থান উল্লেখ করে রতনদিয়া ইউনিযন পরিষদ চেয়ারম্যান হাচিনা পারভীন নিলুফা বলেন,কালুখালী উপজেলায় এবার ৫১টি মন্ডপে দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে।এই আয়োজনকে বরন করে নিতে মন্ডপগুলো প্রায় প্রস্তুত।এখন শেষ মূহুর্তে চলছে সাজ সজ্জার কাজ।রং এর কাজ প্রায় সমাপ্ত হয়েছে।ধর্ম যার যার উৎসব সবার এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবাই পূজার আনন্দকে উপভোগ করবে।

দুর্গাপূজা উৎযাপনের ব্যাপারে রাজবাড়ী পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির (পিপিএম) জানান,জেলার ৫টি উপজেলায় এবার ৩৯৯টি মন্ডপে দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে জেলার বিভিন্ন এলাকার পূজা উৎযাপন কমিটির সদস্যদের সাথে আইন-শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তার ব্যাপারে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলায় সবচেয়ে বড় ও ব্যতিক্রম পূজার আয়োজন চলছে বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের আলোকদিয়া গ্রামে।সেখানে সবচেয়ে বেশী নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগ ও সকল মন্ডবে সার্বক্ষণিক আলোর ব্যবস্থা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও অন্যান্য মন্ডপে মোতায়েন থাকবে অতিরিক্ত পুলিশ। আযান ও নামাযের সময়ে বাদ্যযন্ত্র বন্ধ রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও জানান, পূজা মন্ডপগুলোতে নিরাপত্তায় আনসার, মহিলা আনসার, পুলিশ বাহিনী ও মহিলা পুলিশ সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করবে।

Tag :

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

লেখক তথ্য সম্পর্কে

Meraj Gazi

জনপ্রিয় পোস্ট

রামকান্তুপুর ইউয়িনের মোহনশাহ’র বটতলার গোল চত্বর এর উদ্বোধন

রাজবাড়ীতে দুর্গাপূজায় প্রস্তুত ৩৯৯টি মন্ডপ, চলছে শেষ মূহুর্তের আয়োজন

আপডেটের সময় : ১২:০১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬

কাজী তানভীর মাহমুদ,রাজবাড়ী  টুডে ডট কম: হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব  দুর্গাপূজার বাকি আর মাত্র কয়েক দিন। এরইমধ্যে প্রায় প্রস্তুত দেশের সব পূজা মন্ডপ। সারা দেশের মতো রাজবাড়ীতেও ৩৯৯টি মন্ডপে চলছে পূজার শেষ মূহুর্তের আয়োজন।

জেলার ৫টি উপজেলায় প্রত্যেকটি পাড়া মহল্লায় এখন দুর্গাপূজায় সাজ সাজ রব পরেছে। দুর্গা দুর্গতিনাশিনী-দশভূজা দেবী দুর্গা এবার আসছেন ঘটকে আর বিদায় ও নেবেন ঘটকে।মায়ের আগমনে ঘুচে যাবে সকলের দুখ বেদনা এমনটিই কামনা করছেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা।

জেলা সদরের ৯৪টি,গোয়ালন্দে ২২টি,কালুখালীতে ৫১টি,পাংশায় ৮৮টি ও বালিয়াকান্দি উপজেলায় ১৪৪টি মন্ডপে আয়োজন করা হয়েছে দুর্গাপূজার।

received_126160964512465

রাজবাড়ী জেলায় সবচেয়ে বড় ও ব্যতিক্রম পূজার আয়োজন চলছে বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের আলোকদিয়া গ্রামের গোবিন্দ চন্দ্র বিশ্বাসের বাড়িতে।সেখানে পুকুরের উপরে প্রায় ৬০ফিট উচ্চতায় বাঁশ কাঠ দিয়ে ৪তলা বিশিষ্ট মন্ডপ তৈরী করা হয়েছে।সেখানে দেবী দুর্গাসহ হিন্দু ধর্মের বিভিন্ন কাহিনী অবলম্বনে ১৫০টি দেব-দেবীর মূর্তি প্রদর্শিত হবে।এ প্রদর্শন চলবে লক্ষী পূজা পর্যন্ত।

দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে কয়েক লক্ষ মায়ের ভক্ত ও দর্শনার্থী জামালপুরের এ পূজা দেখতে আসবে বলে ধারনা করছে আয়োজক কমিটি।

বালিয়াকান্দির গ্রাম জামালপুর দুর্গাপূজা উদযাপন কমিটির প্রধান আয়োজক গোবিন্দ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, ১৫০দেব-দেবীর ব্যতিক্রম এই পূজা দেখতে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে কয়েক লক্ষ দেবী ভক্ত ও দর্শনার্থীরা উপস্থিত হবেন ব্যাতিক্রম ধর্মী এই পুজায় এমনটি আশা।তবে এবারে দেশের বিভিন্ন স্থানে জঙ্গী হামলার কারনে অনেকটা ভীত হয়ে পরেছেন তারা।কামনা করেছেন পুলিশ প্রশাসনের সহযোগীতা।

তিনি আরও বলেন,এই গ্রাম জামালপুরে ২ যুগ ধরে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ব্যাতিক্রমী ভিন্ন এক আয়োজন করা হয়েছে জামালপুরে। যেখানে প্রদর্শিত হবে হিন্দু ধর্মের বিভিন্ন কাহিনী অবলম্বনে ১৫০ টির বেশী দেব-দেবীর মূর্তি প্রদর্শনী।তাছাড়াও নতুন প্রজন্মের মধ্যে ধর্মের জ্ঞান পরিপূর্ণ করতে তৈরী করা হচ্ছে স্বর্গ ও নরকের কল্পিত রূপ।যাতে করে ন্যায় ও অন্যায়ের ফলাফল মানুষ অনুধাবন করতে পারে।পাপের বোঝা কমাতে পারে।

পূজা উৎযাপনে কালুখালী উপজেলার রতদিয়া ইউনিয়নকে একটি আদর্শ পূজা উৎযাপনের স্থান উল্লেখ করে রতনদিয়া ইউনিযন পরিষদ চেয়ারম্যান হাচিনা পারভীন নিলুফা বলেন,কালুখালী উপজেলায় এবার ৫১টি মন্ডপে দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে।এই আয়োজনকে বরন করে নিতে মন্ডপগুলো প্রায় প্রস্তুত।এখন শেষ মূহুর্তে চলছে সাজ সজ্জার কাজ।রং এর কাজ প্রায় সমাপ্ত হয়েছে।ধর্ম যার যার উৎসব সবার এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবাই পূজার আনন্দকে উপভোগ করবে।

দুর্গাপূজা উৎযাপনের ব্যাপারে রাজবাড়ী পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির (পিপিএম) জানান,জেলার ৫টি উপজেলায় এবার ৩৯৯টি মন্ডপে দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে জেলার বিভিন্ন এলাকার পূজা উৎযাপন কমিটির সদস্যদের সাথে আইন-শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তার ব্যাপারে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলায় সবচেয়ে বড় ও ব্যতিক্রম পূজার আয়োজন চলছে বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের আলোকদিয়া গ্রামে।সেখানে সবচেয়ে বেশী নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগ ও সকল মন্ডবে সার্বক্ষণিক আলোর ব্যবস্থা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও অন্যান্য মন্ডপে মোতায়েন থাকবে অতিরিক্ত পুলিশ। আযান ও নামাযের সময়ে বাদ্যযন্ত্র বন্ধ রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও জানান, পূজা মন্ডপগুলোতে নিরাপত্তায় আনসার, মহিলা আনসার, পুলিশ বাহিনী ও মহিলা পুলিশ সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করবে।