ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
রামকান্তুপুর ইউয়িনের মোহনশাহ’র বটতলার গোল চত্বর এর উদ্বোধন রাজবাড়ীতে মাদকদ্রব্যর অপব্যবহার ও পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস ও আলোচনা সভা রাজবাড়ীতে ডিবি পুলিশের অভিযানে মাদক ব্যবসায়ী মোজাম্মেল আটক রাজবাড়ী শহর রক্ষা প্রকল্প (ফেইজ-২) বাস্তবায়ন বিষয়ক সাধারণ সমন্বয় সভা সন্ধ্যার মধ্যে বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান করতে হবে-প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী রামকান্তপুর ইউনিয়ন ও পৌর নবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সোহেল রানা। ঈদুল ফিতর’ উপলক্ষে চন্দনী ইউনিয়বাসীর সুস্বাস্থ্য, সুখ-সমৃদ্ধি ও অনাবিল আনন্দ কামনা করে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন-শাহিনুর পৌরবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা মীর সজল জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল সম্প্রদায়ের মানুষকেঈদের শুভেচ্ছা কাজী ইরাদত আলীর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে ছিন্নমূল মানুষের মাঝে ইফতার বিতরণ

দারুণ জয়ে সিরিজে সমতায় ফিরল আফগানিস্তান

  • রিপোর্টারের নাম
  • আপডেটের সময় : ১০:৫৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬
  • ২৪৬ ভিউয়ের সময়

রাজবাড়ী টুডে ডট কম: শেষ  মুহূর্তের জয়ে সিরিজে সমতা ফেরাল আফগানিস্তান। প্রথম ম্যাচে ৭ রানে হেরে যাওয়ার পর আজ বুধবার মিরপুরে স্বাগতিক বাংলাদেশকে ২ উইকেটে হারিয়েছে সফরকারী দলটি। বাংলাদেশের দেয়া ২০৯ রানের খেলতে নেমে দুই বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় আফগান ইনিংস। বল হাতে চার উইকেট নিলেও আফগানদের জয়টা থামাতে পারেননি সাকিব আল হাসান।

মিরপুরে টস হেরে ব্যাটিং করে ২০৮ রান করে বাংলাদেশ।

ব্যাট করতে নেমে প্রথম তিন ওভারে মাত্র ৬ রান করলেও কোনো উইকেট হারায়নি সফরকারী দলটি। তবে সাকিবের দ্বিতীয় ওভারেই বদলে যায় ম্যাচের চেহারা। দলীয় চতুর্থ ওভারে আফগান ওপেনার নওরোজ মঙ্গলকে ফিরিয়ে দিয়ে টাইগার শিবিরে স্বস্তি ফিরিয়ে এনেছেন বিশ্ব সেরা এই অলরাউন্ডার। সেই ওভারে সাকিবকে দুটি চার মারেন মঙ্গল।

এর পরের বলেই আগের ম্যাচে আফগানদের টেনে তোলা রহমত শাহকে কোনো রান করার আগেই লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন সাকিব। এরপর শেহজাদকে নিয়ে ৪৫ রানের জুটি বাধেন হাসমতউল্লাহ শাহিদি। ১৪তম ওভারে সৈকতের হাতে বল তুলে দেন অধিনায়ক মাশরাফি। প্রথম বলেই শাহিদিকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন তরুণ সৈকত।

এরপর ১৬তম ওভারে বাংলাদেশের ‘কাঁটা’ হয়ে থাকা মোহাম্মদ শেহজাদকে ফিরিয়ে দিয়ে টাইগারদের সবচেয়ে বড় ব্রেক থ্রুটা এনে দেন সাকিব। আফগানদের রান তখন ৬৩। ৩৫ বলে চারটি চার ও দুটি ছয়ে ৩৫ রান করেন শেহজাদ।

শেহজাদ আউট হবার পর বেশ বিপদে পড়ে যায় আফগানিস্তান। তবে অভিজ্ঞ মোহাম্মদ নবী ও অধিনায়ক আজগর স্ট্যানিকজাই মিলে আফগান ইনিংসটাকে ভালোভাবেই সামলান। পঞ্চম উইকেট জুটিতে এই দুই ব্যাটসম্যান যোগ করেন ১০৭ রান।

উইকেট নেবার জন্য সম্ভাব্য সকল চেষ্টাই করেন অধিনায়ক মাশরাফি। শেষমেষ নিজের হাতেই বল তুলে নেন তিনি। শেষ পর্যন্ত অধিনায়কই ভাঙেন এই জুটি। মোহাম্মদ নবীকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন তিনি।

৪৯ রান করেন নবী। নবী আউট হবার পর খুব বেশিক্ষণ থাকতে পারেনি অধিনায়ক আজগর স্ট্যানিকজাইও। সৈকতের বলে সাব্বিরকে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ৫৭ রান করেন আফগান অধিনায়ক।

প্রথম ওয়ানডের মতো এই ম্যাচেও শেষের দুই তিন ওভারে বেশ উত্তেজনা তৈরি হয়। তবে নজিবুল্লাহ জাদরান ও মীরওয়াইশ আশরাফের ব্যাটিংয়ে শেষ পর্যন্ত জয় পায় আফগানিস্তান। আগামী ১ অক্টোবর তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে মাঠে নামবে দুই দল।

আফগান স্পিনারদের দাপটে ২০৮ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। সবোর্চ্চ ৪৫ রান করেছেন অভিষিক্ত মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। এছাড়া মুশফিক ৩৮ ও মাহমুদউল্লাহ ২৫ রান করেন। আফগান বোলারদের মধ্যে রশিদ খান নেন ৩ উইকেট।

Tag :

আপনার মন্তব্য লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষণ করুন

লেখক তথ্য সম্পর্কে

Meraj Gazi

জনপ্রিয় পোস্ট

রামকান্তুপুর ইউয়িনের মোহনশাহ’র বটতলার গোল চত্বর এর উদ্বোধন

দারুণ জয়ে সিরিজে সমতায় ফিরল আফগানিস্তান

আপডেটের সময় : ১০:৫৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬

রাজবাড়ী টুডে ডট কম: শেষ  মুহূর্তের জয়ে সিরিজে সমতা ফেরাল আফগানিস্তান। প্রথম ম্যাচে ৭ রানে হেরে যাওয়ার পর আজ বুধবার মিরপুরে স্বাগতিক বাংলাদেশকে ২ উইকেটে হারিয়েছে সফরকারী দলটি। বাংলাদেশের দেয়া ২০৯ রানের খেলতে নেমে দুই বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় আফগান ইনিংস। বল হাতে চার উইকেট নিলেও আফগানদের জয়টা থামাতে পারেননি সাকিব আল হাসান।

মিরপুরে টস হেরে ব্যাটিং করে ২০৮ রান করে বাংলাদেশ।

ব্যাট করতে নেমে প্রথম তিন ওভারে মাত্র ৬ রান করলেও কোনো উইকেট হারায়নি সফরকারী দলটি। তবে সাকিবের দ্বিতীয় ওভারেই বদলে যায় ম্যাচের চেহারা। দলীয় চতুর্থ ওভারে আফগান ওপেনার নওরোজ মঙ্গলকে ফিরিয়ে দিয়ে টাইগার শিবিরে স্বস্তি ফিরিয়ে এনেছেন বিশ্ব সেরা এই অলরাউন্ডার। সেই ওভারে সাকিবকে দুটি চার মারেন মঙ্গল।

এর পরের বলেই আগের ম্যাচে আফগানদের টেনে তোলা রহমত শাহকে কোনো রান করার আগেই লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন সাকিব। এরপর শেহজাদকে নিয়ে ৪৫ রানের জুটি বাধেন হাসমতউল্লাহ শাহিদি। ১৪তম ওভারে সৈকতের হাতে বল তুলে দেন অধিনায়ক মাশরাফি। প্রথম বলেই শাহিদিকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন তরুণ সৈকত।

এরপর ১৬তম ওভারে বাংলাদেশের ‘কাঁটা’ হয়ে থাকা মোহাম্মদ শেহজাদকে ফিরিয়ে দিয়ে টাইগারদের সবচেয়ে বড় ব্রেক থ্রুটা এনে দেন সাকিব। আফগানদের রান তখন ৬৩। ৩৫ বলে চারটি চার ও দুটি ছয়ে ৩৫ রান করেন শেহজাদ।

শেহজাদ আউট হবার পর বেশ বিপদে পড়ে যায় আফগানিস্তান। তবে অভিজ্ঞ মোহাম্মদ নবী ও অধিনায়ক আজগর স্ট্যানিকজাই মিলে আফগান ইনিংসটাকে ভালোভাবেই সামলান। পঞ্চম উইকেট জুটিতে এই দুই ব্যাটসম্যান যোগ করেন ১০৭ রান।

উইকেট নেবার জন্য সম্ভাব্য সকল চেষ্টাই করেন অধিনায়ক মাশরাফি। শেষমেষ নিজের হাতেই বল তুলে নেন তিনি। শেষ পর্যন্ত অধিনায়কই ভাঙেন এই জুটি। মোহাম্মদ নবীকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন তিনি।

৪৯ রান করেন নবী। নবী আউট হবার পর খুব বেশিক্ষণ থাকতে পারেনি অধিনায়ক আজগর স্ট্যানিকজাইও। সৈকতের বলে সাব্বিরকে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ৫৭ রান করেন আফগান অধিনায়ক।

প্রথম ওয়ানডের মতো এই ম্যাচেও শেষের দুই তিন ওভারে বেশ উত্তেজনা তৈরি হয়। তবে নজিবুল্লাহ জাদরান ও মীরওয়াইশ আশরাফের ব্যাটিংয়ে শেষ পর্যন্ত জয় পায় আফগানিস্তান। আগামী ১ অক্টোবর তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে মাঠে নামবে দুই দল।

আফগান স্পিনারদের দাপটে ২০৮ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। সবোর্চ্চ ৪৫ রান করেছেন অভিষিক্ত মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। এছাড়া মুশফিক ৩৮ ও মাহমুদউল্লাহ ২৫ রান করেন। আফগান বোলারদের মধ্যে রশিদ খান নেন ৩ উইকেট।